ঘরে বসে ব্যাংক একাউন্ট খোলার উপায়!

ঘরে বসে ব্যাংক একাউন্ট খোলার উপায়!

ডিজিটাল বাংলাদেশে প্রায় সব ধরণের সেবাই আজকাল ঘরে বসেই পাওয়া যাচ্ছে। অনলাইনে কেনাকাটা করাটা আজকাল যেন আমাদের প্রতিদিনের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। আর একই কারণে অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেমগুলো ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। অনলাইন সেবার দুনিয়ায় তাহলে ব্যাংকিং সেবাই পিছিয়ে থাকবে কেন? আজকে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব আপনার নিত্যদিনকার প্রয়োজনীয় ব্যাংকিং সেবা আপনি কিভাবে ঘরে বসেই পেতে পারেন তা নিয়ে। আমাদের আলোচনায় ব্যাংক একাউন্ট খোলা থেকে শুরু করে আনুষাঙ্গিক কিছু ব্যাংকিং সেবা নিয়েই খোলামেলা আলোচনা করব।

 প্রত্যেকটা ব্যাংকেরই নিজস্ব কিছু পলিসি এবং গাইডলাইন অনুযায়ী ব্যাংকিং সেবা দিয়ে থাকে। তাই প্রত্যেকটা ব্যাংক নিয়ে আলাদা ভাবে কথা না বলে আমরা আজকে আলোচনা করব ঘরে বসে ইসলামি ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড এ একাউন্ট খোলার পদ্ধতি ও আনুষাঙ্গিক ব্যাংকিং সেবা নিয়ে।

ইসলামি ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড লগো

কেন ইসলামি ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডে একাউন্ট খুলবেন?

ইসলামি ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বেসরকারী বাণিজ্যিক ব্যাংক। অন্যান্য বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো যখন এলিট শ্রেণির গ্রাহকদের নিয়ে ক্লাস ব্যাংকিং নিয়ে ব্যাস্ত তখন ইসলামি ব্যাংক দেশের আপমার সাধারণ মানুষের ব্যাংক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছে। বর্তমানে এই ব্যাংকের গ্রাহক সংখ্যা প্রায় দেড় কোটি। এছাড়া ইসলামি শরিয়াহ ভিত্তিক ব্যাংক হিসেবে এটি বাংলাদেশ তথা সারা বিশ্বের কাছে অনুকরণীয় আদর্শ হিসেবে স্থান করে নিয়েছে। বিশ্বের শ্রেষ্ঠ এক হাজার ব্যাংকের তালিকায় বাংলাদেশের একমাত্র ব্যাংক হিসেবে এটি স্থান করে নিয়েছে। দেশের বৈদেশিক রেমিট্যেন্সের প্রায় এক তৃতীয়াংশ ইসলামি ব্যাংক আহরণ করে থাকে। মোটকথা বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং সবচেয়ে বড় শরিয়াহ ভিত্তিক ব্যাংকে যদি আপনি একাউন্ট খুলতে আগ্রহী হোন তাহলে এই লেখাটি হতে যাচ্ছে আপনার জন্যেই। 

ইসলামি ব্যাংকের অনলাইন একাউন্ট এর বিশেষ সুবিধাঃ

বাংলাদেশে প্রায় ১৬ টি ব্যাংক ঘরে বসে একাউন্ট খোলার সুবিধা দিয়ে থাকে। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ব্যাংকে গিয়ে আবার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সাবমিট করার ঝামেলা পোহাতে হয়। এক্ষেত্রে ইসলামি ব্যাংক ব্যাতিক্রম সেবা নিয়ে এসেছে। ইসলামি ব্যাংকের অনলাইন একাউন্ট খোলার পর ব্যাংকে গিয়ে কোন ধরণের পেপার সাবমিট করার প্রয়োজন হয় না। অর্থাৎ আপনি ঘরে বসেই একাউন্ট খোলার যাবতীয় কাজ সম্পাদন করতে পারবেন।

কিভাবে একাউন্ট খুলবেন?

প্রথমেই আমি পরিচয় করিয়ে দিব ইসলামি ব্যাংকের অসাধারণ একটি এন্ড্রয়েড এপস এর সাথে, যার নাম হচ্ছে CellFin. প্লে-ষ্টোরে গিয়ে আপনি প্রথমেই CellFin এপস টি ডাউনলোড করে নিন। এরপর আপনাকে এপসটি ওপেন করে রেজিষ্ট্রেশন করে নিতে হবে। রেজিষ্ট্রেশন করার জন্যে আপনার তিনটি জিনিস প্রয়োজন হবে।

১. মোবাইল নম্বর

২. পাসপোর্ট সাইজের ছবি

৩. জাতীয় পরিচয়পত্র

সকল তথ্য সঠিক ভাবে পূরণ করে সাবমিট করার পর ১৬২৫৯ এ ডায়াল করে এক্টিভেট করে নিতে হবে।

ইসলামি ব্যাংকের সেলফিন এপ

রেজিস্ট্রেশনের সাথে সাথেই আপনি পেয়ে যাবেন একটি ভার্চ্যুয়াল ভিসা ডেবিট কার্ড। যা আপনি অনলাইন কেনাকাটা সহ বিভিন্ন ধরণের লেনদেন ও টাকা উত্তোলনের জন্যে ব্যবহার করতে পারবেন। (এই লেখার শেষ অংশে থাকবে কার্ড ছাড়া কিভাবে ইসলামি ব্যাংকের বুথ থেকে কোন চার্জ ছাড়া টাকা উত্তোলন করতে পারবেন।)

এই সেলফিন এপসের মধ্যে রয়েছে প্রায় ২০০ রকমের ব্যাংকিং সেবা। এই এপসটি ওপেন করলেই নিচের দিকে Open A/C অপশনটি দেখতে পাবেন।

ঘরে বসে ব্যাংক একাউন্ট খোলা

Open A/C অপশনে গিয়ে আপনার সেলফিন একাউন্টের ৬ ডিজিটের পিন নম্বরটি দেয়ার পর যাবতীয় তথ্য দেয়ার জন্যে একটি ইন্টারফেস পাবেন।

এটি যথাযথভাবে পূরণ করে সাবমিট করলেই আপনার ব্যাংক একাউন্ট ওপেন হয়ে যাবে। এখানে অতিরিক্ত হিসেবে নমিনীর ছবি ও জাতীয় পরিচয়পত্র প্রয়োজন হবে। তাই আগে থেকেই এই দুটো জিনিস সংগ্রহ করে নিবেন।

টাকা জমা দেয়ার পদ্ধতিঃ

একাউন্ট তো হয়ে গেলো। এখন তাহলে টাকা জমা দিব কিভাবে? প্রথম কথা হচ্ছে বাংলাদেশের যে কোন ব্যাংক একাউন্ট থেকে এই একাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করা যাবে। দ্বিতীয়ত ক্যাশ টাকা জমা দিতে হলে অনেকগুলো অপশন আছেঃ

১. সিআরএম  (CRM) মেশিনে টাকা জমা দিতে পারেন। এক্ষেত্রে টাকা জমা দেয়ার সাথে সাথেই একাউন্টে টাকা জমা হয়ে যাবে।

২. আইডিএম (IDM) মেশিনে টাকা জমা দিতে পারেন। এক্ষেত্রে পরবর্তী কর্মদিবসে টাকা জমা হবে।

৩. ইসলামি ব্যাংক এর যে কোন এজেন্ট শাখা হতে টাকা জমা করতে পারেন।

৪. এছাড়া যেকোন উপশাখা কিংবা শাখা অফিসে গিয়ে টাকা জমা দিতে পারেন।

সেলফিন রেজিষ্ট্রেশনের পাশাপাশি আপনি একই সাথে একটি এমক্যাশ একাউন্ট পেয়ে যাবেন। আপনি ইসলামি ব্যাংকের যে কোন এমক্যাশ এজেন্টের কাছে গিয়ে টাকা জমা করতে পারেন। এক্ষেত্রে সেলফিনের মাধ্যমে এমক্যাশ থেকে টাকা একাউন্টে নেয়া যায়।

টাকা উত্তোলন করার পদ্ধতিঃ

ইসলামি ব্যাংকের যে কোন এটিএম বুথ, শাখা কিংবা উপশাখা থেকে আপনি টাকা উত্তোলন করতে পারবেন। এছাড়া আপনি চাইলে সংশ্লিষ্ট শাখা অফিসে গিয়ে চেক বই এবং ভিসা কার্ড নিতে পারবেন। অনলাইনে ওপেন করা একাউন্টে আপনি সব ধরণের সেবা নিতে পারবেন এবং এক্ষেত্রে কোন ধরণের সীমাবদ্ধতা নেই।

কার্ড ছাড়া টাকা উত্তোলন করার পদ্ধতিঃ

আমি আগেই বলেছিলাম লেখার শেষ অংশে কার্ড ছাড়া টাকা উত্তোলনের পদ্ধতি নিয়ে লিখব। টাকা উত্তোলনের জন্যে আপনাকে সেলফিনের Cash Withdraw অপশনে যেতে হবে। এখানে ক্লিক করার পর আপনি চারটি অপশন পাবেন।

কার্ড ছাড়া ব্যাংক একাউন্ট থেকে টাকা তোলা

এগুলো যথাক্রমে এটিএম, এজেন্ট, শাখা/উপশাখা এবং এমক্যাশ এজেন্ট থেকে টাকা উত্তোলনের জন্যে আলাদা আলাদা অপশন। আমি ধরে নিচ্ছি আপনি এটিএম বুথ থেকে টাকা উত্তোলন করবেন। এক্ষেত্রে আপনি প্রথম অপশনে ক্লিক করবেন। এখানে টাকার পরিমাণ এবং পিন নম্বর দেয়ার পর একটি টোকেন নম্বর পাবেন। এটিএম বুথে কার্ড লেস ট্রাঞ্জেকশান অপশনে গিয়ে এই টোকেন নম্বর দেয়ার পর আপনার মোবাইলে একটি ভেরিফিকেশান নম্বর আসবে। এই ভেরিফিকেশান নম্বরটি বুথে দেয়ার পর আপনার ক্যাশ পেমেন্ট পেয়ে যাবেন। একই ভাবে আপনি এজেন্ট, শাখা/উপশাখা থেকেও পেমেন্ট নিতে পারেন।

শেষ কথাঃ

ইসলামি ব্যাংকের সেলফিন ও অন্যান্য অনলাইন সেবা সম্পর্কে লিখতে হলে এতো অল্প সময়ে বা সংক্ষিপ্ত পরিসরে কিছু লেখা খুবই কঠিন কাজ। আমার আজকের লেখার মূল উদ্দেশ্য ছিলো ঘরে বসে ব্যাংক একাউন্ট খোলার পদ্ধতি সম্পর্কে কিছু বলা। আশা করছি আজকের পর পাঠকগণ সহজেই ঘরে বসে ব্যাংক একাউন্ট খুলতে পারবেন।  কারো কোন জিজ্ঞাসা বা পরামর্শ থাকলে কমেন্টস সেকশনে লিখবেন। লেখার ভূল ত্রুটি দয়া করে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।


আমাদের অন্যান্য লেখা সমূহঃ

দাবা খেলার নিয়ম কানুন

বিখ্যাত মনিষীদের উক্তি

রহস্যময় গুপ্ত সংঘ ইলুমিনাতি

পুজিবাজারে ভালো শেয়ার চেনার উপায়


Leave a Reply

Close Menu